এখন আর ছোটবেলার মতো করে উৎসবমুখর চিন্তা করিনা: মিথিলা

একটা সময় শুধু এই বাংলাদেশেরই জনপ্রিয় অভিনেত্রী, মডেল ছিলেন মিথিলা। তবে এখন তিনি দুই বাংলার দর্শকপ্রিয় অভিনেত্রী। সংসারের জন্য বছরের দীর্ঘ একটা সময় তাকে কলকাতাতেই থাকতে হয়। তবে সেখান থেকে এবার বেশ লম্বা বিরতি নিয়েই দেশে চলে এলেন মিথিলা।

মিথিলা জানান, সিনেমার শুটিং-এ অংশ নিতে এবং অফিসের কিছু কাজ করতেই তিনি দেশে এসেছেন। মিথিলা এরইমধ্যে গিয়াস উদ্দিন সেলিম পরিচালিত ‘কাজল রেখা’ সিনেমার শুটিং করছেন নেত্রকোনার দূর্গাপুরে। এই সিনেমায় তিনি কংকন দাসী চরিত্রে অভিনয় করছেন। আবার সিনেমার কাজ শেষে তিনি অফিসের কাজ অর্থাৎ ব্র্যাক’র কিছু কাজ আছে তা শেষ করে আগামী সপ্তাহে এক মাসের জন্য অফিসিয়াল কাজের জন্য চলে যাবেন তানজানিয়া ও ক্যানিয়া। সেখান থেকে এসে পরের মাসে চলে যাবেন আমেরিকা। সেখানে তার অভিনীত রাজর্ষি দে পরিচালিত ‘মায়া’ সিনেমাটি বঙ্গ সম্মেলনে প্রদর্শন করা হবে।

এদিকে আজ বুধবার নন্দিত এই অভিনেত্রীর জন্মদিন। ঘড়ির কাঁটা বারোটা ছোঁয়ার আগে থেকেই সহকর্মী, বন্ধু-বান্ধব ও ভক্ত অনুরাগীদের শুভেচ্ছা ও ভালোবাসায় সিক্ত হচ্ছেন তিনি।

রাফিয়াত রশিদ মিথিলা বলেন,‘আমিতো অনেক আগে থেকেই নিজেকে গ্লোবাল সিটিজেন মনে করি। যে কারণে আমাকে বছরের নির্দিষ্ট একটি সময় অফিসের কাজেই দেশের বাইরে থাকতে হয়। আর এখন যেহেতু আমার সংসার কলকাতায়, তাই কলকাতাতেও অনেক সময় দিতে হয়। যে কারণে বাবা মা ভাই বোনকে আগের মতো করে ঢাকায় নিজের মনের মতো করে সময় দেয়া হয়ে উঠে না। তবে আমার মেয়ে সবসময়ই আমার সঙ্গে থাকে। সে এখন কলকাতাতেই পড়াশুনা করছে।

আর জন্মদিন নিয়ে এখন আর ছোটবেলার মতো করে উৎসবমুখর কোন চিন্তা করিনা। এখন কোনরকমভাবে দিনটি উদযাপন করতে পারলেই হয়। এখন যেহেতু কাজল রেখা সিনেমার সেট-এ আছি, তাই আমার কোন পরিকল্পনা নেই।

সেলিম ভাইয়ের নির্দেশনায় এটি আমার প্রথম কাজ। সেলিম ভাই খুব ভালো করে বুঝিয়ে দেন বিধায় চোখ বন্ধ করে অভিনয় করতে পারছি, নিজের চরিত্রটি তুলে ধরার চেষ্টা করছি। তবে কংকন দাসী চরিত্রটি একেবারেই আলঅদা একটি চরিত্রে। আমি খুব আশাবাদী সিনেমাটি নিয়ে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.