হানিফ সংকেতের মৃত্যুর গুজব

টেলিভিশনের সবচেয়ে জনপ্রিয় ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ‘ইত্যাদি’র রচয়িতা, পরিচালক ও উপস্থাপক হানিফ সংকেত নাকি সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেছেন। মঙ্গলবার রাত থেকে এমনই খবর ছড়ানো হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

এর মধ্যে Asofuddowla Jewel নামের একটি আইডি থেকে লেখা হয়েছে, ‘শোক এবং শ্রদ্ধা, জনপ্রিয় ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ইত্যাদির উপস্থাপক, প্রযোজক ও নির্মাতা বিশিষ্ট গুণীজন হানিফ সংকেত আজ সড়ক দুর্ঘটনায় ইন্তেকাল করেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। আমরা গভীর শোক প্রকাশ করছি।’

‘দূর্গাপুর উপজেলা প্রচার দল’ নামে একটি ফেসবুক পেইজ থেকে লেখা হয়েছে, শোক সংবাদ, সকলের সুপরিচিত ও জনপ্রিয় ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ইত্যাদির প্রযোজক, উপস্থাপক, ব্যবস্থাপক, আয়োজক খ্যাতিমান ও স্বনামধন্য সকলের পরিচিত মুখ জনাব হানিফ সংকেত আজ সকালে এক সড়ক দুর্ঘটনায় ইন্তেকাল করিয়াছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। আমি মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করি এবং তাহার পরিবারের সকল সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানাই। দোয়া করি, মহান আল্লাহ পাক রাব্বুল আলামিন যেন উনাকে জান্নাত নসিব করেন, আমিন।’

Siyadat Raj নামে আরেকটি আইডি থেকে লেখা হয়েছে, ‘জনপ্রিয় উপস্থাপক ইত্যাদির হানিফ সংকেত দুর্ঘটনায় মারা গেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। একটি নক্ষত্রের সমাপ্তি হলো।’ এই আইডির পোস্টটি হুবহু কপি করে ছড়ানো হয়েছে Md. Ridwan Khan নামে একটি আইডি থেকেও।

Open photo

তবে ‘অনুভূতি’ নামে একটি পেইজ থেকে লেখা হয়েছে, ‘ইত্যাদির হানিফ সংকেতের ভাই নুরুজ্জামান বাচ্চু আজ দুপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

ফেসবুকের এসব পোস্ট দেখে বিচলিত গুণী মিডিয়া ব্যক্তিত্ব হানিফ সংকেতের লাখো ভক্ত এবং শুভাকাঙ্ক্ষী। কিন্তু ঘটনা আসলে কী?

এ ব্যাপারে জানতে ঢাকাটাইমস যোগাযোগ করে হানিফ সংকেতের পরিবারের এক সদস্যে সঙ্গে। তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে জানান, ‘সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়ানো খবর একেবারেই ভুয়া। কোনো ধরনের দুর্ঘটনাই ঘটেনি। হানিফ সংকেত সুস্থ আছেন।’

এর আগে গত বছরের জুনে গুজব ছড়ানো হয়, ‘ইত্যাদি’র নিয়মিত আইটেম নানা-নাতির ‘নাতি’ নিপু মারা গেছেন। সে সময় হানিফ সংকেত গণমাধ্যমকে জানিয়েছিলেন, খবরটি ভুয়া। তিনি বলেছিলেন, ‘ফেসবুকে কিছু মানুষ আছে, তারা কোনো কিছু না বুঝেই উল্টাপাল্টা খবর ছড়ায়। নিজেদের পাবলিসিটি করে। এদের শাস্তির আওতায় আনা উচিত।’

সে সময় নিজের মৃত্যুর গুজব নিয়ে মুখ খোলেন নিপুও। তিনি বলেন, ‘সবার দোয়ায় আমি সুস্থ আছি। দেশবাসীর কাছে দোয়া চাই। যারা আমার ছবি ব্যবহার করে অপপ্রচার করেছেন, তারা যেন এমন ঘৃণিত কাজ থেকে বিরত থাকেন।’ ওই ঘটনার এক বছরের মাথায় এবার হানিফ সংকেতেরই মৃত্যুর গুজব ছড়ানো হলো।

আশির দশক থেকে শুরু করে দুই যুগেরও বেশি সময় ধরে বাংলাদেশের দর্শককুলকে ‘ইত্যাদি’ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে আনন্দ দিয়ে যাচ্ছেন হানিফ সংকেত। একাধারে তিনি উপস্থাপক, পরিচালক, লেখক ও প্রযোজক। ইত্যাদি অনুষ্ঠানের পাশাপাশি ঈদ উৎসবে টিভিতে তার রচিত ও পরিচালিত নাটকও প্রচারিত হয়।

হানিফ সংকেতের ‘ইত্যাদি’ অনুষ্ঠানে বিদেশি ভাষার যে ফানি ক্লিপগুলো দেখানো হতো, তাতে তিনি নিজেই কণ্ঠ দিতেন। এর বাইরে একসময় তাকে হুমায়ূন আহমেদের কিছু নাটকে অভিনয় করতেও দেখা গেছে। যদিও নিজেকে নিয়ে ছড়ানো মৃত্যুর গুজবে এখনো কোনো প্রতিক্রিয়া দেননি হানিফ সংকেত।

Leave a Reply

Your email address will not be published.