শিমু হ;ত্যা: নোবেল হ;ত্যাকা;রী মানতে দ্বিমত বোন ফাতিমার

বর্তমানে মিডিয়া পাড়ার আলোচিত খবর ঢাকাই সিনেমার অভিনেত্রী রাইমা ইসলাম শিমুকে হ;ত্যা। এই অভিনেত্রীর হ;ত্যার খবরে অভিনয় শিল্পীদের মাঝে হতাশার ছায়া নেমে আসে। যদি এখন হ;ত্যাকা;ণ্ডের মূল কারন এখনও জানা যায়নি। ঘটনার পর স্বামী শাখাওয়াত আলীম নোবেল ও তার বন্ধু ফরহাদকে গ্রে;প্তার করেছে কেরানীগঞ্জ থানা পুলিশ। তবে এই অভিনেত্রীকে তার স্বামী নোবেল হ;ত্যা করেছেন তা এখনও মানতে রাজি নন শিমুর আপন বোন ফাতিমা নিশা। তিনি তার বোনের স্বামীর সঙ্গে কথা বলে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন।

মঙ্গলবার (১৮ জানুয়ারি) বিকেলে গণমাধ্যমকে এই কথা জানান ফাতিমা নিশা। যদিও নোবেলকে গ্রে;ফতারের পর পুলিশ বলেছে, নোবেল পুলিশকে প্রাথমিক জিজ্ঞা;সাবাদে স্ত্রী হ;ত্যার কথা স্বীকার করেছেন। তবুও পুলিশের এই বক্ত;ব্যে দ্বি;মত পোষণ করেছেন।

এ প্রসঙ্গে ফাতিমা নিশা বলেন, আমি এখন থানা;য় আছি। মা;মলা করার প্রস্তুতি চলছে থা;নায়। মা;মলার কাজ শেষে স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এ যাব বোনের ম;রদেহ নিতে।

মা;মলায় তার বোনের স্বামীকে আ;সামি করা হচ্ছে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে বলেন, এ বিষয়ে আমরা এখনও কোনো সিদ্ধান্ত নিতে পারছিনা। তবে আমরা আলাপ আলোচনা করছি।

পুলিশ বলেছে নোবেল তার স্ত্রীকে হ;ত্যা করেছে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এ বিষয়ে আমি এখনও কিছু বলতে চাচ্ছি না। পুলিশকে কোন পরিপ্রেক্ষিতে আমার বোন জামাই একথা বলেছেন তা পুলিশ জানে। হয়তো পুলিশের কাছে তথ্যপ্রমাণও আছে। তবে আমি আমার বোনের স্বামীর সঙ্গে কথা বলা না পর্যন্ত এ বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নিতে চাচ্ছি না। আমি আমার বোনের স্বামীর সঙ্গে কথা বলতে চাই।

এর আগে ঢাকা জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে ঢাকা জেলার পুলিশ সুপার (এসপি) মারুফ হোসেন সরদার বলেন, চিত্রনায়িকা রাইমা ইসলাম শিমুর (৩৫) ব;স্তাব;ন্দি ম;রদেহ উ;দ্ধারের ঘটনার পর আমরা তার স্বামী নোবেল ও বন্ধু ফরহাদকে জিজ্ঞা;সাবাদের জন্য থানায় নিয়ে আসি। জি;জ্ঞাসাবাদে তাদের সংশ্লিষ্টতা প্রতীয়মান হওয়ায় তাদের গ্রে;ফতার করা হয়।

হ;ত্যার কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, দীর্ঘদিন ধরে পারিবা;রিক ও দা;ম্পত্য জীবনে ক;লহ থাকায় তাকে হ;ত্যা করা হয়েছে বলে জানায় নোবেল। আর হ;ত্যার পর লা;শ গু;মে সে বন্ধু ফরহাদের সহযোগিতা নেন। প্রাথমিক জিজ্ঞাসা;বাদে নোবেল তার স্ত্রী;কে হ;ত্যার কথা স্বীকার করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.