মাশরাফির ফিটনেস নিয়ে প্রশ্ন, উড়িয়ে দিলেন ঢাকার কোচ

তিন দিন বাদেই শুরু হবে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) অষ্টম আসর। দীর্ঘ দিন ধরে মাশরাফি বিন মুর্তজা নেই প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেটে। এখনো পুরোদমে বোলিংয়ই শুরু করতে পারেননি মিনিস্টার ঢাকার এই তারকা ক্রিকেটার। তার ফিটনেস নিয়ে নানা প্রশ্ন থাকলেও ফ্র্যাঞ্চাইজিটির কোচ মিজানুর রহমান বাবুল এক প্রকার উড়িয়ে দিয়েছেন। তার কাছে মাশরাফির কোনো তুলনা নেই।

‘মাশরাফি কিন্তু বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপেও পরের দিকে এসে ম্যাচ জিতিয়েছে, শুরুতে খেলেনি। এবার বিপিএল খেলার জন্য সে প্রায় ১০ কেজি ওজন কমিয়েছে। তার প্রস্তুতি ওরকম ছিল। আমার মনে হয় মাশরাফি ইজ মাশরাফি। ইনশাআল্লাহ্ তাকে নিয়মিত ম্যাচেই দেখা যাবে’- সোমবার (১৭ জানুয়ারি) মিনিস্টার ঢাকার জার্সি উন্মোচন অনুষ্ঠান শেষে এভাবেই বলেছেন বাবুল।

আজও বিসিবি একাডেমি মাঠে অনুশীলন করেছেন মাশরাফি। পুরোদমে বোলিং করতে পারেননি। শর্ট রান আপে তিন ওভারের মতো বোলিং করেছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে। ৬ জানুয়ারি থেকে প্রায় নিয়মিতিই বল হাতে নিজেকে ঝালিয়ে নিতে দেখা যাচ্ছে। সে দিন অনুশীলনে ফিরে মাশরাফি জানিয়েছিলেন ছন্দে ফিরতে বেশি সময় লাগবে না।

মাশরাফি বলেছিলেন, ‘আমার ব্যাকপেইন আছে একটু। আজকে অনেকদিন পর এসেছি। একটু সময় লাগবে হয়তো। সামনে বিপিএল আছে। আস্তে আস্তে শুরু করছি। ব্যাক পেইনের অবস্থার ওপর নির্ভর করে। বিসিএলে খেলার কথা ছিল, আমাকে বলেছে। প্রস্তুতি পুরোপুরি শুরু না হওয়া পর্যন্ত নিশ্চিত করতে পারছি না।’

মাশরাফি সর্বশেষ বল হাতে দৌড়েছেন ২০২০ সালের ১৮ ডিসেম্বর, বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপের ফাইনালে খেলেছিলেন জেমকন খুলনার হয়ে গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামের বিপক্ষে। এরপর আর কোনো প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচে নামেননি তিনি। বিসিএলের ওয়ানডে সংস্করণ দিয়ে ফেরার কথা ছিল, ফিট না থাকায় পারেননি।

বিপিএলের আর বেশি দেরি নেই। মাশরাফি ফিট হতে পারবেন তো? ঢাকার কোচ ফিট থাকার ব্যাপারেও গুরুত্ব দিয়েছেন। যত বড় খেলোয়াড় হোক না কেন ফিট থাকা চাই। তিনি বলেন, ‘যে যতো বড় খেলোয়াড় হোক তাকে ফিট থাকতে হবে। ফিট না হলে খেলতে পারবে না। প্রথমত আমরা দেখব সে ফিট আছে কি না।’

মাশরাফি ছাড়াও ঢাকায় খেলবেন তামিম ইকবাল ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। দেশের ক্রিকেটের এই তিন তারকাকে এক সঙ্গে সামলানো চ্যালেঞ্জিং কিনা-এমন প্রশ্নে বাবুল জানালেন তিনি উপভোগ করবেন।

‘গত বছরও এরকমই ছিল। এ বছর তামিম এসেছে (সাকিব অন্য দলে)। ছোটবেলা থেকে তামিমকে আমি কোচিং করাই। গত ডিপিএলে আমার অধীনে খেলেছে। তামিমের সাথে অনেক বেশি ফ্রেন্ডলি আমি। গত বছরও উপভোগ করেছি, এবার আরও বেশি উপভোগ করবো আশা করি।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.