দুর্গাপূজার ছুটি ৩ দিন, দাবি হিন্দু ফোরামের

এখন শরৎকাল। কিছুদিন পরেই হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। পূজা উপলক্ষে তিন দিনের সরকারি ছুটির দাবিতে মানববন্ধন করেছে বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু ফোরাম, হিন্দু যুব ফোরাম ও হিন্দু ছাত্র ফোরাম।শুক্রবার (১ অক্টোবর) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ষষ্ঠীতে দেবীর বোধন তথা পূজা শুরু হয় এবং দশমীতে বিসর্জনের মধ্য দিয়ে পূজা শেষ হয়। দুর্গাপূজায় ষষ্ঠী থেকে দশমী এই পাঁচ দিনের পূজা অনুষ্ঠানের জন্য দেশের হিন্দুরা সরকারি ছুটি পাচ্ছেন শুধু মাত্র এক দিন, তথা বিজয়া দশমীর দিন। দুর্গাপূজায় মাত্র এক দিনের সরকারি ছুটির কারণে দেশের হিন্দু সম্প্রদায় দীর্ঘদিন ধরে দুর্গাপূজার আনন্দ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। অথচ হিন্দু সম্প্রদায়ের সদস্যরা পরিবার পরিজনের সঙ্গে মিলিত হওয়ার বাসনায় সারা বছর শারদীয় দুর্গাপূজার এই দিনগুলোর জন্য অপেক্ষায় থাকে।

তারা বলেন, বিজয়া দশমীতে বাবা-মা, গুরুজন ও প্রতিবেশীদের প্রণাম করা ও আশীর্বাদগ্রহণ একটি ধর্মীয় সামাজিক রীতি। কিন্তু একদিন ছুটি থাকায় সরকারি-বেসরকারি চাকরিজীবী কারও পক্ষেই গ্রামে গিয়ে বাবা-মা বা গুরুজনদের সান্নিধ্য লাভের সুযোগ হয় না। ফলে পূজার দিনগুলো বাবা-মা সন্তান ও পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের মানসিক কষ্টের মধ্যেই কাটাতে হয়। এ কারণে দেশের হিন্দু সম্প্রদায়ের দীর্ঘদিনের দাবি শারদীয় দুর্গাপূজায় সরকারিভাবে তিন দিনের ছুটি ঘোষণা করা হোক।

এসময় দেশের বিভিন্ন স্থানে পূজামণ্ডপে প্রতিমা ভাঙচুরের প্রতিবাদ ও মণ্ডপের নিরাপত্তা জোরদারের দাবি জানায় বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু ফোরাম। একই সঙ্গে ফোরামটি প্রতিমা ভাঙচুরে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদান, ভোলার পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি গৌরাঙ্গ দে’র মুক্তিও দাবি করেন।

মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন- বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু ফোরাম কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক মানিক চন্দ্র সরকার, সহ-সভাপতি কালীপদ মজুমদার, বাংলাদেশ হিন্দু সমাজ সংস্কার সমিতির সভাপতি অধ্যাপক হীরেন্দ্রনাথ বিশ্বাস, হিন্দু হেরিটেজ ফাউন্ডেশন ও বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু ফোরাম কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আশালতা বৈদ্য প্রমুখ।

About Running News

Check Also

ভাসমান সেই মসজিদে জুমার নামাজ পড়লেন মুসল্লিরা

হাওলাদারবাড়ির পুরনো মসজিদটি খোলপেটুয়া নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। নামাজ আদায়ের মতো সুবিধা এখন আর নেই। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *